১০ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ রাত ১:২১
ব্রেকিং নিউজ
ভোলায় শেখ ফজলুল হক মনি’র ৮৪ তম জন্মদিন পালিত অসুস্থ স্বামীকে বাঁচানোর জন্য স্ত্রীর সাহায্যের আবেদন লর্ডহার্ডিঞ্জ ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসায় ২০২২ সালের আলিম পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়া বোরহানউদ্দিনে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও সংবাদ সংম্মেলন দলের বিরুদ্ধে নির্বাচন করেও ভালুকা ১নং উথুরা ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পদ প্রত্যাশী রাজিব মন্ডল ভোলার সমৃদ্ধি কর্মসুচির আওতায় বিনামূল্যে দিনব্যাপি চক্ষু ক্যাম্প অনুষ্ঠিত বিয়ে করে একাধিক স্বামীর নিকট মোহরানা আদায় করেন শাহনাজ পারভীন বাঐসোনা কামশিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত বোরহানউদ্দিনে বিদ্যালয়ের সোলারের ব্যাটারী বিক্রি করে দিয়েছে প্রধান শিক্ষক ভোলায় নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেখ রাসেল এর ৫৯ জন্মদিন পালিত

ভোলায় সাংবাদিক পরিবার ৪ দিন ঘরে অবরুদ্ধ বাড়ি যেতে পারছেনা শিশু সন্তান মানবেতর জীবনযাপন

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, অক্টোবর ১৬, ২০২২,
  • 36 Time View

ভোলা প্রতিনিধি ।। বাড়ির চলাচলের পথ বন্ধ করে দিয়ে এক সাংবাদিক ও শিক্ষক পরিবারকে চার দিন ধরে গৃহবন্দী করে রাখার অভিযোগ উঠেছে। একাধিকবার পুলিশ গিয়ে চলাচলের পথ উন্মুক্ত করে দেয়ার নির্দেশ দিলেও কাজ হয়নি। ভোলা জেলা শহরের গাজীপুর রোডের সংগঠিত এমন অমানবিক, অসামাজিক ও সভ্যতা বিবর্জিত কর্মকাণ্ডে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সাংবাদিকসহ স্থানীয় শুশীল সমাজ।রবিবার সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় ভোলা প্রেসক্লাবের সহসভাপতি বাংলাদেশ প্রতিদিন ও নিউজ টুয়ান্টিফোরের সাংবাদিক এবং কলেজ শিক্ষক জুন্নু রায়হানসহ তার পরিবার গত ৪ দিন ধরে অবরুদ্ধ অবস্থায় রয়েছেন। এতে করে সাংবাদিক জুন্নু রায়হান ও তার স্ত্রী একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যায়য়ের প্রধান শিক্ষিকা তার কর্মস্থালেও যেতে পারছেনা। এক ধরনের গৃহবন্ধি হয়ে অবস্থায় মানবেতর জীবন যাপন করছে। পরিস্থিতি এমন যে গত বৃহস্পতিবার সকালে তার এক মাত্র পুত্র সন্তান চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র স্কুল থেকে ফিরে বাসার পথ বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারনে ঘরে ডুকতে পারেনি। পরে নিরুপায় হয়ে গত ৪ দিন ধরে এক আত্মীয়ের বাড়িতে রয়েছে ওই শিশুটি। বাড়িতে অবরুদ্ধা অবস্থায় থাকা মা বাবার কাছে যেতে না পেরে খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে কান্নাকাটি করছে। অভিযোগ রয়েছে, তার বাসার প্রায় ৩৩

বছরের চলাচলরে রাস্তা পাশ্ববর্তী প্রতিপক্ষরা ইট রেখে বন্ধ করে দেয়ায় এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে ভোলা থানা পুলিশ গিয়ে হাটাচলার ওই রাস্তা উন্মুক্ত করতে নিদের্শ দিলেও তা মানা হয়নি। এ ঘটনায় ভোলার পেশাদার সাংবাদিকরা নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে দ্রুত ওই সাংবাদিক পরিবারকে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে উদ্ধার করে তার হাটার রাস্তা উন্মুক্ত করে দেয়া দাবী জানান।
সাংবাদিক ও সহকারী অধ্যাপক জুন্নু রায়হান জানান, তার প্রতিবেশী মোকাম্মেল হক ঝন্টুর বড় ভাইর কাছ থেকে ১৯৮৭ সালে তারা ৭ শতাংশ জমি কিনেন তার বাবা। এরপর প্রায় ৩৩ বছর ধরে নির্বিঘ্নে বসবাস করছেন। এমনকি বাসার সামনে দিয়ে চলাচলরে পথ যৌথ ভাবে সকলেই ব্যবহার করে আসছে। কিন্তু ২০২০ সালে ঝন্টু, পিংকু, শিরিন গং তাদের পৈতৃক জমি ভাগ করার সময় বাড়ির এজমালি পথ রাখেনি। এজমালি পথ রাখার জন্য জুন্নু রায়হান ওই সময় ভোলা পৌর সভার শালিস বোর্ডের সভাপতি ও কাউন্সিলর শাহে আলমকে অনুরোধ করেন। তিনি চেষ্টাও করেন। কিন্তু ঝন্টু গং এজমালি পথ রাখতে রাজি হন নি। পরে জুন্নু রায়হানের বাড়ির মধ্য দিয়ে ৮ ফুটের একটি পথ নিতে চায়। এতে করে জুন্নু রায়হানের বাড়ির এক শতাংশ জমি চলে যাবে। ওই প্রস্তাবে জুন্নু রায়হান রাজি হয়নি। পরে পৌরসভার প্যানেল মেয়র সালাউদ্দিন লিংকনসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে সকলের সিদ্ধান্ত মোতাবেক যাতায়াতের জন্য ৪ ফুটের পথ রেখে অর্থাৎ প্রায় আধা শতাংশ জমি ছেড়ে দিয়ে জুন্নু রায়হান তার বাড়ির বাউন্ডারি দেওয়ালে তোলেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ঝন্টু গং যাতায়াতের পথে দেওয়াল তুলে তাকে প্রথম অবরুদ্ধ করে এবং আদালতে দেওয়ানি ২৯৮/২১ নং মামলা করেন । দীর্ঘদিন অবরুদ্ধ থাকার পর গত প্রায় ৩ মাস আগে পৌর মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান নিজে উপস্থিত থেকে ওই দেওয়াল ভাঙ্গার ব্যবস্থা করে সকলের চলাচলের পথ উন্মুক্ত করে দেন। কিন্তু গত ১৩ অক্টোবর বৃহস্পতিবার আবার ওই চলাচলের রাস্তায় ইট স্তুপ করে রেখে পথ আটকে দেয়। এদিকে চলাচলের পথ বন্ধ করে দেওয়ার প্রস্তুতি নিলে সেখানে যাতে কাজ করতে না পারে সেজন্য ভোলা এডিএম কোর্টে আবেদন করা হয়। আদালত পুলিশকে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার নির্দেশনা দেয় এবং ইট সরিয়ে ফেলার জন্য নির্দেশ দেন ও পুলিশ তাদের নোটিশ দেন। কিন্তু প্রতিপক্ষ সেখানে ইটের স্তুপ না সরিয়ে পথ বন্ধ করে রেখেছে । পুলিশ ইট সরিয়ে চলাচলের পথ উন্মুক্ত করে দেওয়ার কথা বললেও ঝুন্টু গং তা অমান্য করে। এর ফলে সাংবাদিক জুন্নু রায়হান যেমন তার কর্মস্থলে যেতে পারছেন না। তেমনি তার স্ত্রীও স্কুলে যেতে পারছেন না। সাংবাদিক জুন্নু রায়হান জানান, গত বৃহস্পতিবার সকালে তার এক মাত্র পুত্র সন্তান চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র স্কুলে যায়। স্কুল শেষে ফিরে দেখেন বাসার পথ বন্ধ। যে কারনে গত ৪ দিন ওই শিশু বাড়িতে অবরুদ্ধা অবস্থায় থাকা মা বাবার কাছে যেতে পারছে না। ওই শিশুটি তার আতœীয়র বাসায় দিন কাটাতে হচ্ছে। এমন অমানবিক পরিস্থিতর মধ্যে দিন কাটাচ্ছে ওই সাংবাদিক পরিবারটি।
এদিকে ঝুন্টু গং পক্ষ বলেছে, আমাদের জমি দিয়ে অন্য কাউকে হাটতে দিবো না। আমাদের পথ আমরা বন্ধ করেছি। আমরা জুন্নু রায়হানদেরকে ৮ ফুটের রাস্তার জমি ছাড়তে বেলেছি। সে ৪ ফুট ছাড়ছে। এতে রাস্তা হয় না। সে ৮ ফুট না ছাড়লে আমাদের জমি দিয়ে তাকে কোন পথ দেয়া হবে না।
এব্যপারে স্থানীয়রা জানান, জুন্নু রায়হানরা ঝন্টুদের কাছ থেকে জমি কিনেছে। যাতায়াতের পথও ঝন্টুরা দিবে। সে ক্ষেত্রে ৭ শতাংশ জমি কেনার ৩৫ বছর পর ঝন্টুদের বাড়ির জন্য জুন্নুরা কেন ১ শতাং জমি কেন ছাড়বে। এটা গায়ের জোরে করতে চায়। অপর দিকে ঝন্টুর ছোট বোন রুমা জানান, তার পৈত্রিক জমি ৫ শতাংশ পাওয়ার কথা থাকেলেও তাকে দেয়া হয়েছে প্রায় ৪ শতাংশ। তার প্রাপ্ত জমি ভাই বোন কেউ বুঝিয়ে দেয় না। তার পুরো জমি তাকে বুঝিয়ে দিলে তার জমির সামনে দিয়ে তখন হাটা চলাচর জমি কতোটুকু ছাড়বে তখন সিদ্ধান্ত নিবেন। এ অবস্থায় সাংবাদিক জুন্নু রায়হানের পরিবার ঝুন্টু গং দের কাছ থেকে জমি কিনে এখন চরম বিপাকে পড়েছেন। এ ব্যাপারে ভোলা মডেল থানার ওসি শাহিন ফকির জানান, আদালতের নির্দেশ অনুসারে পুলিশ ১৪৪/১৪৫ জারি করছে। শান্তিশৃংখরার জন্য নোটিশ প্রদান করেছি। কোর্টের দিক নির্দেশনার বাইরে আমাদের কিছু করার নেই।

হাসিব রহমান
ভোলা।

১৬.১০.২২

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Dwonload From Ashraftech.Com
AshrafTech